ফ্রিল্যান্সিং কি? কেন? এবং শুরু করার প্রক্রিয়া? – Domain and Cheap Web Hosting in Bangladesh
Alauddirtek, Pallabi
Cantonment, Dhaka-1206.
01828 363436
01871 499308
info@nhostbd.com
www.nhostbd.com

ফ্রিল্যান্সিং কি? কেন? এবং শুরু করার প্রক্রিয়া?

ফ্রিল্যান্সিং কি? কেন? এবং শুরু করার প্রক্রিয়া?

মুক্তপেশা ইংরেজি Freelancing, ফ্রিল্যান্স (Freelance) শব্দটি Free এবং Lance দুটি শব্দের সমান্বয়ে তৈরি। কোন নির্দিষ্ট্য ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের অধিনে কাজ না করে স্বাধীন ভাবে কাজ করাকে ফ্রিল্যান্সিং বলে। যারা ফ্রিল্যান্সিং পেশার সাথে জড়িত তাদের “মুক্তপেশাজীবী” (ইংরেজিতে: Freelancer) বলা হয়।

ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে যাবতীয় প্রশ্ন:

  • ফ্রিল্যান্সিং কি?
  • আপওয়ার্ক, ফাইভার, ফ্রিলান্স্যার, পিপল পার আওয়ার, ৯৯ডিজাইন এগুলো কি?
  • ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে কি কি কাজ করা যায়?
  • কিভাবে শুরু করবো?
  • কোথায় ভর্তি হবো?
  • মাসে কত টাকা আয় করবো?
  • টাকা কিভাবে উঠাবো?

মুক্তপেশায় কাজের ধরণ:

মুক্তপেশা বা ফ্রিল্যান্সিং কাজের কোন শেষ নেই। কোন কাজ দিয়ে আপনি একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হবেন তা আপনি যে কাজ পারেন সেটার উপর নির্ভর করে। ফ্রিল্যান্সিং কাজের পরিধি অনেক বেশি। সারাবিশ্বে এধরণের কর্মপদ্ধতির চাহিদা ক্রমশ বাড়ছে। বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সাররা প্রতিনিয়ত যে কাজ গুলো করে যাচ্ছে তার কিছু উল্লেখ করা হলো-

  • গ্রাফিক্স ডিজাইন: ফ্রিল্যান্সিং এ গ্রাফিক্স ডিজাইন এর চাহিদা সবার তুঙ্গে। এর মধ্যে আছে লোগো ডিজাইন, ওয়েবসাইট ব্যানার, ছবি সম্পাদনা, অ্যানিমেশন ইত্যাদি।
  • ওয়েব ডেভলপমেন্ট: ওয়েবসাইট ডিজাইন, ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্ট, ওয়েবভিত্তিক সফ্‌টওয়্যার তৈরি, হোস্টিং ইত্যাদি।
  • ডিজিটাল মার্কেটিং: ইন্টারনেটভিত্তিক বাজারজাতকরণ কার্যক্রম, যেমন ব্লগ, সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটে বিপণন।
  • লেখালেখি ও অনুবাদ: ব্লগিং, নিবন্ধ , ওয়েবসাইট কন্টেন্ট, সংবাদ বিজ্ঞপ্তি, ছোট গল্প, প্রাপ্তবয়স্কদের গল্প এবং এক ভাষা থেকে অন্য ভাষায় ভাষান্তরকরণ উল্লেখযোগ্য।
  • কম্পিউটার প্রোগ্রামিং: ডেস্কটপ প্রোগ্রামিং থেকে ওয়েব প্রোগ্রামিং সবই এর আওতায় পড়ে।
  • সাংবাদিকতা: যারা এবিষয়ে দক্ষ তারা বিভিন্ন দেশি-বিদেশি পত্রপত্রিকায় লেখালেখির, চিত্রগ্রহণের পাশাপাশি ইন্টারনেটভিত্তিক জনসংযোগ করে থাকেন।
  • গ্রাহক সেবা: দেশি-বিদেশি বিভিন্ন কোম্পানির গ্রাহককে টেলিফোন, ইমেইল ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সাহাজ্যে তথ্য প্রদানের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় সহায়তা করা।
  • প্রশাসনিক সহায়তা: দেশি-বিদেশি বিভিন্ন কোম্পানির বিভিন্ন কাজের ডাটা এন্ট্রি করণ, ব্যক্তিগত সহকারী হিসেবে কাজ করা ইত্যাদি।

ফ্রিল্যান্সিং এর সুবিধা:

  • পূর্ন স্বাধীনতা।
  • ভালো ইনকাম এর নিশ্চয়তা।
  • নিজের পারিশ্রমিক নিজেই নির্ধারন করা।
  • ইচ্ছে মত ছুটি কাটানো।
  • পছন্দ মত কাজ করা।
  • দেশ বিদেশর নতুন নতুন মানুষের সাথে বন্ধুত্ব হওয়া। তাদের কৃষ্টি, কালচার এবং চিন্তা-চেতনা সম্পর্কে জানার সুযোগ।

ফ্রিল্যান্সিং এর অসুবিধা

  • ফ্রিল্যান্সার এর সংখ্যা বেড়ে যাওয়াতে দিন দিন মার্কেপ্লেস গুলোতে প্রতিযোগীতার হার বেড়ে যাচ্ছে। সুতরাং ভালো কাজ না জানলে মার্কেটপ্লেস থেকে কাজ পাওয়া সম্ভব নয়।
  • প্রথম কাজ পাওয়া একটু কষ্ট সাধ্য বেপার।
  • ফিক্সড ক্লায়েন্ট সেট করা সময় সাপেক্ষ বেপার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

18 − 11 =